28 C
dhaka
মঙ্গলবার, ১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১লা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | দুপুর ১:৩৫
দৈনিক পরিবর্তন সংবাদ

একজন সফল নারী উদ্যোক্তার গল্প

বিশেষ প্রতিবেদকঃ
পৃথিবীতে যা কিছু মহান সৃষ্টি চির কল্যাণকর, অর্ধেক তার করিয়াছে নারী অর্ধেক তার নর’। নারী ও পুরুষকে এভাবেই দেখেছেন জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম। বর্তমানে নারীরা কোনো কাজেই পিছিয়ে নেই। তারা তাদের নিজ যোগ্যতায় এগিয়ে যাচ্ছে প্রতিনিয়ত। আর কয়েক দশক আগেও কর্মক্ষেত্রে নারীদের পদচারণা চোখে পড়ার মতো ছিলো না। কিন্তু এখন নারীরা ঘরে বাইরে সব পেশায় নিজেদের নিয়োজিত করছে। সৃষ্টি হচ্ছে নতুন নতুন উদ্যোক্তা। অনলাইন ব্যবসায়ের প্রবর্তনের ফলে নারীরা আরও বেশি পরিমাণে সফল উদ্যোক্তায় পরিণত হচ্ছে৷ তেমনি একজন  ফাতেমা রশীদ জেনিফার।

ফাতেমা রশীদ জেনিফার নোয়াখালী মাইজদীর সরকারি অবসরপ্রাপ্ত  মৃত হারুনু উর রশীদ এর ৩য় সন্তান। তিনি ( জেনিফার) একজন ব্যবসায়ী, উদ্যোক্তা ও সমাজসেবী। পথে পথে নানা প্রতিবন্ধকতা মোকাবেলা করতে হয়েছে ফাতেমা রশীদ জেনিফার । তবে দমে যাননি। ২০১৮ সাল থেকে মেয়েদের বিভিন্ন পোশাক নিয়ে কাজ করে আজ সে সফল । শুরুতে ব্যবসায়ের মুলধন ৬০০০০ টাকা হলেও বর্তমানে তার ব্যবসায়ের মুলধন বহুগুণে বেড়েছেড়,প্রায় ২২ লক্ষ টাকা। নিজস্ব পরিমণ্ডলে তিনি এখন একজন সফল উদ্যোক্তা হিসেবে পরিচিত। ইন্ডিয়া থেকে মেয়েদের থ্রী পিচসহ বিভিন্ন ধরনের পণ্য আমদানি করেন জেনিফার। সফল এই নারী উদ্যোক্তা সম্প্রতি মুখোমুখি হন দৈনিক পরিবর্তন সংবাদে

পরিবর্তন সংবাদ: আজকে আপনি একজন সফল নারী উদ্যোক্তা। এর শুরুর গল্পটা শুনতে চাই !

ফাতেমা রশীদ জেনিফার: আমার বাবা মরহুম হারুন উর রশীদ ছিলেন একজন সরকারি কর্মকর্তা। ছোটবেলা থেকেই ব্যবসায়ীক কর্মকান্ড দেখতে দেখতে আমি বড় হয়েছি। তখন থেকেই আমি নিজে কিছু করার স্বপ্ন দেখতাম। আমি পড়ালেখা শেষ করি ২০১৬ সালে। বিয়ের পর আর চাকুরী করা হয়ে ওঠেনি। আমি একজন স্বাধীনচেতা মানুষ। তাই চাকরী  ভালো লাগে না, তাই নিজে কিছু করার ইচ্ছে আজ আমাকে এখানে নিয়ে এসেছে। আমি ব্যবসা শুরু করি ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসে অনলাইন পেইজে কারচুপি করা ড্রেস নিয়ে। আমার সাথে আমার বড়বোন রাজিয়া রশীদ, আমার বড়বোনের স্বামী তাজুল ইসলাম এবং আমার স্বামী আশিক রহমান ছিলেন। তাদের সাহায্য ছাড়া কিছুই করা সম্ভব ছিলো না। আর সাথে ছিলো অক্লান্ত পরিশ্রম। আসলে বলতে হয়,  আমার পেইজে যে সকল আপুরা ছিলেন তাঁরাই আমাকে এইপর্যন্ত নিয়ে এসেছে, আমাকে বিশ্বাস করে ভালোবাসা দিয়ে। অনলাইনে বিশ্বাস ধরে রাখতে পেরেছি বলেই আজ  একজন সফল উদ্যাক্তা আমি।

পরিবর্তন সংবাদ : আপনার ব্যবসায়ে আসার কারণটা জানতে চাই !

ফাতেমা রশীদ জেনিফার: আসলে নিজের ভালো লাগা থেকেই ব্যবসায়ে আসা। ব্যবসায়ের মাধ্যমে নিজের সৃজনশীলতাকে কাজে লাগানো যায়। একজন ব্যবসায়ী সমাজে অনেক অবদান রাখতে পারেন। একজন ব্যবসায়ীই পারেন হাজার হাজার বেকার তরুণ-তরুণীদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে। মূলত এসব কারণেই ব্যবসায়ের সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত করা।

পরিবর্তন সংবাদ: আপনার ব্যবসার পরিধি বর্তমানে কেমন বেড়েছে ?

ফাতেমা রশীদ জেনিফার: বর্তমানে আমার ব্যবসার পরিধি ব্যাপক বিস্তৃত হয়েছে।  আমার ব্যবসার পরিধি যেমন বেড়েছে তেমন আমার আয়ের পরিমাণও বেড়েছে । এখনো আমার ব্যবসয়ের সন্তোষজনক পুঁজি রয়েছে।

পরিবর্তন সংবাদ: একজন নারী হয়েও এই পর্যায়ে আসতে কতটা বেগ পেতে হয়েছে?
ফাতেমা রশীদ জেনিফার: আমি কাজকে সব সময় পছন্দ করতাম। আমার কাজ খুব ভালো লাগতো আর ছোট থেকেই ভাবতাম আমি নিজে কিছু করব। আমার প্রতিষ্ঠান থাকবে। আমার লক্ষ্য অটুট ছিল, আমি শত বাধা অতিক্রম করে আমার স্বপ্নকে এগিয়ে নিয়ে গেছি। আর এক্ষেত্রে আমার স্বামী সবসময় আমাকে সহযোগীতা করেছে। আমি এখন সফল। পরিশ্রম করলে সফলতা আসবেই এখন পরিশ্রম করছি বাকিটা জীবন পরিশ্রম করব।

পরিবর্তন সংবাদ: নারী হিসেবে ব্যবসা করতে এসে কোন কোন ধরনের প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হয়েছেন ?

ফাতেমা রশীদ জেনিফার: অনেক প্রতিবন্ধকতার শিকার হতে হয়েছে। অনেকে অনেক কথা বলতো তারপরও আমি হতাশ হয়নি। কারণ আমি ভাবতাম, যে যা বলে বলুক আমি তো জানি আমি কি রকম। সফলতায় পৌঁছাতে বাধা আসবেই। অনেকে অনেক কিছু বলেছে, তারপরও আমি আমার স্বপ্ন থেকে একটুও পিছিয়ে যায়নি তাই আমি আজ সফল।

পরিবর্তন সংবাদ: আপনার ব্যবসায়ীক অনলাইন পেইজ এর নাম কি?এবং দোকানের ঠিকানা কোথায়?
ফাতেমা রশীদ জেনিফার: আমার ফেইসবুক পেইজ হচ্ছে Be unique by Jennifer ও Dresses for Girls এবং দোকানের ঠিকানা হচ্ছে অভিজান ৩৫,শাকিল সরনী,এস.এস.একাডেমী রোড,আঁচপাড়া,টংগী,গাজিপুর।
পরিবর্তন সংবাদ: নতুন নারী উদ্যোক্তাদের জন্য আপনার কী পরামর্শ ?

ফাতেমা রশীদ জেনিফার: নতুন নারী উদ্যোক্তাদের জন্য আমার পরামর্শ- স্বাবলম্বী হয়ে বেঁচে থাকার স্বার্থকতাটাই আলাদা। আমার প্রতিটি নারীর জন্য একটাই কথা থাকবে, আমরা নারী হয়েছি বলে কি হয়েছে! আমরাও মানুষ। যাদের লক্ষ্য অটুট থাকে এবং যদি পরিশ্রম করতে পারে, আমার মনে হয় নারী বা পুরুষ নয়, প্রতিটি মানুষই সফল হবে। এছাড়া আমরা আগে ওই রকম কোনো সুযোগ পায়নি, কিন্তু বর্তমান সরকার, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারীদের অনেক সুযোগ করে দিয়েছেন। তাই এই সুযোগগুলো ব্যবহার করে নারীদেরকে পুরুষদের মতো এগিয়ে যেতে হবে।

পরিবর্তন সংবাদ: আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

ফাতেমা রশীদ জেনিফার: পরিবর্তন সংবাদ পরিবারকেও ধন্যবাদ

আরও পড়ুন...

দাউদকান্দিতে মসজিদের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেন শফিক ভূঁইয়া

অনলাইন ডেস্ক. পরিবর্তন সংবাদ

ফেনীতে শীতের আমেজে ভাপা পিঠার ধুম

অনলাইন ডেস্ক. পরিবর্তন সংবাদ

মোহাম্মদ নাসিমের দাফন কাল বনানীতে

অনলাইন ডেস্ক. পরিবর্তন সংবাদ